লিটনের ফ্ল্যাট
লিটনের ফ্ল্যাট শব্দটি বাংলাদেশে বেশ প্রচলিত। শেষে বাংলা সাহিত্যেও স্থান পেয়ে গেছে লিটনের ফ্ল্যাট । বেশিরভাগ অর্থেই নেতিবাচক। ২০০৪ সালে মোস্তফা সরয়ার ফারুকী নির্মিত ‘ব্যাচেলর’ সিনেমায় নায়ক তার প্রেমিকাকে বলে যে, তার বন্ধু লিটন ও তার মা-বাবা ইউএসএ থাকে। চল আমরা সেখানে গিয়ে কথা বলি । বেশ নিরিবিলি সময় কাটবে।
.
লিটনের ফ্ল্যাট মানেই বোঝানো হয় প্রেমিক প্রেমিকার দেখা সাক্ষাতের জন্য একটা নিরাপদ জায়গা। পুলাপানে সেটার আরেকটা সংজ্ঞা দিয়েছে যার নাম রুম ডেটিং। প্রথমে হাসি হাসি খুশি খুশি মনে একটু নিরিবিলি একে অপরের দিকে সময় নিয়ে চেয়ে থাকা। না বলা কথা বলে নিজেকে হালকা করা। তারপর লোভী পুলার পাল্লায় পড়ে জীবন নষ্ট।
.
লিটনের ফ্ল্যাটে যাওয়ার প্রথম উদ্যোগ প্রেমিক নেয় নাকি প্রেমিকা? জনমত অনুযায়ী ৯৫% ভাগ ক্ষেত্রে প্রেমিকের মুখ থেকে কথাটা আসে।
.
আম্মাজানেরা, লিটনের ফ্ল্যাটে যাওয়ার জন্য প্রথম বার প্রস্তাব দিলে ঘমক দিবেন। হুশিয়ারী উচ্চারণ করবেন। দ্বিতীয়বার বললে আর হাতে নয়। বাটা অথবা এপেক্স।