ব্লগিং অনেকের কাছে শখ আবার অনেকের কাছে নেশা। যাদের কাছে ব্লগিং শখ তারা সুধু লিখেই লিখেই যায় এক সময় দেখা মোটামুটি অবস্থানে চলে আসে। তবে শখের বশে যারা ব্লগিং করে তাদের ব্লগিং করে ইনকামের আশা থাকে না। তবুও একসময় হয়তো তাদের কিছু আয় হয়।

কিন্তু যাদের কাছে ব্লগিং নেশা তারা জানে কিভাবে ব্লগিং করে আয় করতে হয়। ব্লগিং হচ্ছে অনলাইনে আয় করার অতি সহজ একটি মাধ্যম। আপনি খুব সহজেই মোবাইল অথবা ল্যাপটপ দিয়েই শুরু করতে পারবেন। আপনি যদি ব্লগিং নেশা হিসেবে নিতে চান। তাহলে কিছু পদক্ষেপ অবলম্বন করতে হবে।

১) ব্লগিং কি সে সম্পর্কে সঠিক ধারনা নেওয়া। ব্লগিং থেকে আয় করা যায় শুনেই ব্লগার থেকে ব্লগ বানায়ে লেখালেখি ব্লগিং নয়।
২) কোন বিষয়ে লিখবেন সিলেক্ট করা। এক কথায় নিশ সিলেক্ট করা। জে বিসয়ে লিখবেন সে বিষয়ে কম্পিটিশন কেমন এটা যদি না দেখেই নিশ সিলেক্ট করে ফেলেন তাইলে আর কি শুরুতে মারা খাবেন। সারা জীবন লিখে জাবেন মাগার গুগুলের প্রথম পেজে আসতে পারবেন না। সবার আগে মাথায় রাখতে হবে কম্পিটিশন।

৩) জেটা লিখবেন সেটা ইউনিক নিজের ক্রেটিভিটি দিয়ে লিখতে হবে। কোন ধরনের কপি মারা থেকে দুরে থাকতে হবে।

৪) এসইও আস্তে আস্তে শিখতে হবে। প্রথমেই এসইও মোটামুটি শিখে তারপর ব্লগিং করা ভালো এতে করে সফলতা তাড়াতাড়ি পাওয়া সম্ভব।

৫) ফ্রিতেই ব্লগিং করবো ধান্দা বাদ দিন। এখন কম্পিটিশন প্রচুর। একেবার ফ্রিতে সফলতা পাওয়া সম্ভব না। তবে ইনভেস্ট করার আগে ভাববেন জে টাকা আপনি ইনভেস্ট করতেছেন সেটা সঠিল জায়গায় করতেছেন কি না। উল্টা পাল্টা ইনভেস্ট করলেই সফলতা আসবেন না। তবে যারা শখের বশে ব্লগিং করবে তারা ফ্রিতেই করতে পারবে।

৬) ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি। ফ্রি ওয়েবসাইট বা ফ্রি হোস্টিং এগুলো দিয়ে শখের ব্লগিং করাও সম্ভব না। তাই ফ্রিতেই ব্লগ সাইট বানাবো ধান্দা একেবারেই মাথায় আনা জাবে না।

৭) ভালো একটি হোস্টিং কোম্পানি থেকে ভালো মানের হোস্টিং নিতে হবে। আর ডোমেইন টা অবশ্যই নেওয়ার সময় রিসার্স করে নিবেন।

৮) ফ্রি থিম নাল থিম এগুলো ব্যাহার করা যাবে না। সাইট তো র‍্যাংক হবেই না হলেও হ্যাক হতে পারে। তাই পারলে নিজে ডেভেলপমেন্ট করে নিবেন অথবা কোন ডেভেলপার এর থেকে ডেভেলপমেন্ট করে নিতে হবে।
চাইলে Themeforest থেকে কিনে কাস্টমাইজ করতে পারেব।

সবশেষ একটা কথায় বলবো। ব্লগিং করবে ঠিক আছে হুট করেই ওয়েবসাইট বানানোর দরকার নেই। ১-২ মাস ধরে রিসার্চ করবেন। নিস সিলেক্ট করবেন। ৪-৫ হাজার টাকা পুজি নিয়ে লেখা শুরু করবেন। কিভাবে এসইও সম্পুর্ন আরটিকেল লিখতে হয়। কিভাবে সাইটের ব্যাকলিংক করতে হয়। কিভাবে সাইট র‍্যাংক করাতে হয় এগুলো গুগল এবং ইউটিউব দেখে দেখে শিখতে থাকুন। এবং নিজের একটি নিস সিলেকশন করতে থাকুন। মোটামুটি নিজের উপর কনফিডেন্স যখন চলে আসবে না এবার আমি পারবো তখন শুরু করে দিবেন।